জনপদ গ্রামীণ জনপদ শিল্প-সাহিত্য-সংস্কৃতি ব্যাবসা-বানিজ্য-অর্থনীতি আমাদের প্রসঙ্গে

,

,

প্রচ্ছদ
Gaibandha.news image: 'যা বলা আছে এমপি লিটন হত্যা মামলার রায়ে'-'

যা বলা আছে এমপি লিটন হত্যা মামলার রায়ে

গাইবান্ধা ডট নিউজ | শনিবার ৩০ নভেম্বর ২০১৯

জিল্লুর রহমান পলাশ, গাইবান্ধা :

গাইবান্ধার সাবেক এমপি লিটনকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলার প্রায় তিন বছরের মাথায় রায় ঘোষণা করেছেন আদালত। আলোচিত এই মামলায় অভিযুক্ত আট আসামির মধ্যে সাতজনকে মৃত্যুদ-ের আদেশ দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) দুপুর পৌনে ১২টার দিকে গাইবান্ধা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক দিলীপ কুমার ভৌমিক এই রায় ঘোষণা করেন।

দীর্ঘ ১৮ মাস আদালতে রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামি পক্ষের আইনজীবিদের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে গত ১৯ নভেম্বর হত্যা মামলাটির রায়ের দিন ধার্য করেন বিচারক। দ-বিধির ১২০-বি এবং ৩০২/৩৪ ধারায় দ-নীয় অপরাধে দোষী সাব্যস্তক্রমে অভিযুক্ত আট আসামির মধ্যে সাত আসামিকে মৃত্যুদ- দেন বিচারক। এরমধ্যে দ-প্রাপ্ত আসামি চন্দন কুমার পলাতক (ভারত) ও অভিযুক্ত অপর আসামি কসাই সুবল কারাগারে অসুস্থ অবস্থায় মারা যান। দ-প্রাপ্ত ছয় আসামি ২০১৭ সালের ২১ ও ২৫ ফেব্রুয়ারী গ্রেফতারের পর থেকে গাইবান্ধা জেলা কারাগারে রয়েছেন।

লিখিত রায়ে যা বলা আছে : হত্যা মামলার অভিযুক্ত (সি, এস ভুক্ত) আট আসামি (১) কর্ণেল (অব:) আবদুল কাদের খাঁন, (২) রাশেদুল ইসলাম ওরফে মেহেদী হাসান, (৩) মো. শাহীন মিয়া ওরফে শান্ত, (৪) আনোয়ারুল ইসলাম ওরফে রানা, (৫) আবদুল হান্নান, (৬) এজেএম শামসুজ্জোহা ওরফে জোহা এবং (৭) চন্দন কুমার রায়কে দ-বিধির ১২০-বি এবং ৩০২/৩৪ ধারায় দ-নীয় অপরাধে দোষী সাব্যস্তক্রমে তাদের প্রত্যেককে মৃত্যুদ-ে দন্ডিত করা হইলো। এই দ-াদেশ বর্ণিত আসামিদেরকে আমৃত্য পর্যন্ত ফাঁসিতে ঝুলাইয়া কার্যকর করার আদেশ হইলো।

রায়ে উল্লেখ করা হয়েছে, ফৌজদারি কার্যবিধির ৩৭৪ ধারার বিধান মতে মহামান্য সুপ্রীম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগ কর্তৃক এই মৃত্যুদ-াদেশ অনুমোদিত হইবার পর ইহা কার্যকর হইবে। মৃত্যুদ-প্রাপ্ত আসামিদের ০৭ (সাত) দিনের মধ্যে এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করিতে হইবে। দ-প্রাপ্ত হাজতি ছয় আসামির প্রতি সাজা পরোয়ানা ইন্স্যু করার নির্দেশও দেওয়া হয়। এছাড়া পলাতক আসামি চন্দন কুমার রায়ের সাজা উক্ত আসামি পুলিশ কর্তৃক ধৃত হইবার পর বা অত্র আদালতে তাহার আত্মসমর্পণের পর আইনানুগ বিধি অনুসরণপূর্বক কার্যকর হইবে। সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি চন্দন কুমার রায়কে গ্রেফতার করিতে সাজা পরোয়ানা ও গ্রেফতারী পরোয়ানা পুলিশ সুপার গাইবান্ধা বরাবরে প্রেরণের আদেশ দেয়া হয়।

রায়ে আরও বলা হয়, এই মামলার জব্দ তালিকাগুলিতে উল্লেখিত জব্দকৃত আলামতসমূহ রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করা এবং উহা প্রযোজ্যমতে আইনের সংশ্লিষ্ট বিধি বিধান অনুযায়ী ধ্বংস করার নির্দেশও দেয়া হয়। পাশাপাশি রায়ে প্রদত্ত মৃত্যুদ- অনুমোদনের জন্য ফৌজদারী কার্য বিধির ৩৭৪ ধারা অনুসারে এই রায়ের অনুলিপিসহ নথি এবং যাবতীয় প্রসিডিং মহামান্য সুপ্রীম কোর্ট, হাইকোর্ট বিভাগ ঢাকা বরাবর পাঠানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। ফৌজদারী কার্যবিধির ৩৭৩ ধারানুসারে রায়ের একটি অনুলিপি বিজ্ঞ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট গাইবান্ধা এবং বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট গাইবান্ধা বরাবরে পাঠানোর আদেশ দেয়া হয়েছে।

এছাড়া এই রায়ের বিরুদ্ধে সাজাপ্রাপ্ত আসামিদের আপীল করিবার সুবিধার্থে ফৌজদারী কার্যবিধির ৩৭১ ধারামতে বিনা খরচে রায়ের অনুলিপি প্রদান এবং পৃথক কাগজে কম্পিউটার কম্পোজকৃত ফর্দ রায় নথির সহিত সামিল রাখার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এদিকে, রায়ের পর্যবেক্ষণে আদালত বলেছেন, ‘রাজনৈতিক কোন্দল, আধিপত্য বিস্তার আর এমপি হওয়ার লোভের জেরেই লিটনকে হত্যার পরিকল্পনা করেন একই আসনের জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি কর্ণেল (অব:) আবদুল কাদের খাঁন। হত্যাকা-ে অংশ নেয়া কিলারদের এক বছর অস্ত্র চালানোর প্রশিক্ষণসহ অর্থ ও নানা প্রলোভন দেন কাদের খাঁন। ২০১৪ সালে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর থেকেই এমপি লিটনকে চিরতরে দুনিয়া থেকে সরিয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা ও নানামুখী প্রেক্ষাপট তৈরিতে কাজ করেন তিনি’।

২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর সুন্দরগঞ্জের বামনডাঙ্গার মাস্টারপাড়ার নিজ বাড়িতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত হন মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন। এ ঘটনায় অজ্ঞাত ৫-৬ জনকে আসামি করে লিটনের বড় বোন ফাহমিদা কাকুলী বুলবুলের দায়ের করা মামলার তদন্ত শেষে ২০১৭ সালের ৩০ এপ্রিল হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী আবদুল কাদের খাঁনসহ ৮ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশীট) দেয় পুলিশ।

এই হত্যাকা-ের ঘটনায় পৃথক দুটি মামলা হয়। এরমধ্যে একটি হত্যা মামলা ও অপরটি অস্ত্র আইনে মামলা হয়। অস্ত্র আইন মামলাটি চলতি বছরের ১১ জুন একমাত্র আসামি আবদুল কাদের খাঁনকে যাবজ্জীবন কারাদ-ের দেয় আদালত। ২০১৭ সালের ২১ ফেব্রুয়ারী বগুড়ার বাসা থেকে আবদুল কাদের খাঁনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে ১০ দিনের রিমান্ড শেষে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়ে এমপি লিটনকে হত্যার দায় স্বীকার করেন কাদের খাঁন।

 

কেআরআর/জিএআই



Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ছবি সংবাদ

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ফটো গ্যালারী

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ফটো ফিচার

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ভিডিও গ্যালারী

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ভিডিও প্রতিবেদন

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

সর্বশেষ খবর

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news image: 'হলি আর্টিজান হামলার রায় আজ, আদালত চত্বরে বিশেষ নিরাপত্তা'-'

হলি আর্টিজান হামলার রায় আজ, আদালত চত্বরে বিশেষ নিরাপত্তা

গাইবান্ধা ডট নিউজ | বুধবার ২৭ নভেম্বর ২০১৯

জিল্লুর রহমান পলাশ, গাইবান্ধা :

গাইবান্ধার সাবেক এমপি লিটনকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলার প্রায় তিন বছরের মাথায় রায় ঘোষণা করেছেন আদালত। আলোচিত এই মামলায় অভিযুক্ত আট আসামির মধ্যে সাতজনকে মৃত্যুদ-ের আদেশ দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) দুপুর পৌনে ১২টার দিকে গাইবান্ধা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক দিলীপ কুমার ভৌমিক এই রায় ঘোষণা করেন।

দীর্ঘ ১৮ মাস আদালতে রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামি পক্ষের আইনজীবিদের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে গত ১৯ নভেম্বর হত্যা মামলাটির রায়ের দিন ধার্য করেন বিচারক। দ-বিধির ১২০-বি এবং ৩০২/৩৪ ধারায় দ-নীয় অপরাধে দোষী সাব্যস্তক্রমে অভিযুক্ত আট আসামির মধ্যে সাত আসামিকে মৃত্যুদ- দেন বিচারক। এরমধ্যে দ-প্রাপ্ত আসামি চন্দন কুমার পলাতক (ভারত) ও অভিযুক্ত অপর আসামি কসাই সুবল কারাগারে অসুস্থ অবস্থায় মারা যান। দ-প্রাপ্ত ছয় আসামি ২০১৭ সালের ২১ ও ২৫ ফেব্রুয়ারী গ্রেফতারের পর থেকে গাইবান্ধা জেলা কারাগারে রয়েছেন।

লিখিত রায়ে যা বলা আছে : হত্যা মামলার অভিযুক্ত (সি, এস ভুক্ত) আট আসামি (১) কর্ণেল (অব:) আবদুল কাদের খাঁন, (২) রাশেদুল ইসলাম ওরফে মেহেদী হাসান, (৩) মো. শাহীন মিয়া ওরফে শান্ত, (৪) আনোয়ারুল ইসলাম ওরফে রানা, (৫) আবদুল হান্নান, (৬) এজেএম শামসুজ্জোহা ওরফে জোহা এবং (৭) চন্দন কুমার রায়কে দ-বিধির ১২০-বি এবং ৩০২/৩৪ ধারায় দ-নীয় অপরাধে দোষী সাব্যস্তক্রমে তাদের প্রত্যেককে মৃত্যুদ-ে দন্ডিত করা হইলো। এই দ-াদেশ বর্ণিত আসামিদেরকে আমৃত্য পর্যন্ত ফাঁসিতে ঝুলাইয়া কার্যকর করার আদেশ হইলো।

রায়ে উল্লেখ করা হয়েছে, ফৌজদারি কার্যবিধির ৩৭৪ ধারার বিধান মতে মহামান্য সুপ্রীম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগ কর্তৃক এই মৃত্যুদ-াদেশ অনুমোদিত হইবার পর ইহা কার্যকর হইবে। মৃত্যুদ-প্রাপ্ত আসামিদের ০৭ (সাত) দিনের মধ্যে এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করিতে হইবে। দ-প্রাপ্ত হাজতি ছয় আসামির প্রতি সাজা পরোয়ানা ইন্স্যু করার নির্দেশও দেওয়া হয়। এছাড়া পলাতক আসামি চন্দন কুমার রায়ের সাজা উক্ত আসামি পুলিশ কর্তৃক ধৃত হইবার পর বা অত্র আদালতে তাহার আত্মসমর্পণের পর আইনানুগ বিধি অনুসরণপূর্বক কার্যকর হইবে। সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি চন্দন কুমার রায়কে গ্রেফতার করিতে সাজা পরোয়ানা ও গ্রেফতারী পরোয়ানা পুলিশ সুপার গাইবান্ধা বরাবরে প্রেরণের আদেশ দেয়া হয়।

রায়ে আরও বলা হয়, এই মামলার জব্দ তালিকাগুলিতে উল্লেখিত জব্দকৃত আলামতসমূহ রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করা এবং উহা প্রযোজ্যমতে আইনের সংশ্লিষ্ট বিধি বিধান অনুযায়ী ধ্বংস করার নির্দেশও দেয়া হয়। পাশাপাশি রায়ে প্রদত্ত মৃত্যুদ- অনুমোদনের জন্য ফৌজদারী কার্য বিধির ৩৭৪ ধারা অনুসারে এই রায়ের অনুলিপিসহ নথি এবং যাবতীয় প্রসিডিং মহামান্য সুপ্রীম কোর্ট, হাইকোর্ট বিভাগ ঢাকা বরাবর পাঠানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। ফৌজদারী কার্যবিধির ৩৭৩ ধারানুসারে রায়ের একটি অনুলিপি বিজ্ঞ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট গাইবান্ধা এবং বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট গাইবান্ধা বরাবরে পাঠানোর আদেশ দেয়া হয়েছে।

এছাড়া এই রায়ের বিরুদ্ধে সাজাপ্রাপ্ত আসামিদের আপীল করিবার সুবিধার্থে ফৌজদারী কার্যবিধির ৩৭১ ধারামতে বিনা খরচে রায়ের অনুলিপি প্রদান এবং পৃথক কাগজে কম্পিউটার কম্পোজকৃত ফর্দ রায় নথির সহিত সামিল রাখার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এদিকে, রায়ের পর্যবেক্ষণে আদালত বলেছেন, ‘রাজনৈতিক কোন্দল, আধিপত্য বিস্তার আর এমপি হওয়ার লোভের জেরেই লিটনকে হত্যার পরিকল্পনা করেন একই আসনের জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি কর্ণেল (অব:) আবদুল কাদের খাঁন। হত্যাকা-ে অংশ নেয়া কিলারদের এক বছর অস্ত্র চালানোর প্রশিক্ষণসহ অর্থ ও নানা প্রলোভন দেন কাদের খাঁন। ২০১৪ সালে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর থেকেই এমপি লিটনকে চিরতরে দুনিয়া থেকে সরিয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা ও নানামুখী প্রেক্ষাপট তৈরিতে কাজ করেন তিনি’।

২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর সুন্দরগঞ্জের বামনডাঙ্গার মাস্টারপাড়ার নিজ বাড়িতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত হন মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন। এ ঘটনায় অজ্ঞাত ৫-৬ জনকে আসামি করে লিটনের বড় বোন ফাহমিদা কাকুলী বুলবুলের দায়ের করা মামলার তদন্ত শেষে ২০১৭ সালের ৩০ এপ্রিল হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী আবদুল কাদের খাঁনসহ ৮ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশীট) দেয় পুলিশ।

এই হত্যাকা-ের ঘটনায় পৃথক দুটি মামলা হয়। এরমধ্যে একটি হত্যা মামলা ও অপরটি অস্ত্র আইনে মামলা হয়। অস্ত্র আইন মামলাটি চলতি বছরের ১১ জুন একমাত্র আসামি আবদুল কাদের খাঁনকে যাবজ্জীবন কারাদ-ের দেয় আদালত। ২০১৭ সালের ২১ ফেব্রুয়ারী বগুড়ার বাসা থেকে আবদুল কাদের খাঁনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে ১০ দিনের রিমান্ড শেষে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়ে এমপি লিটনকে হত্যার দায় স্বীকার করেন কাদের খাঁন।

 

কেআরআর/জিএআই



Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ছবি সংবাদ

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ফটো গ্যালারী

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ফটো ফিচার

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ভিডিও গ্যালারী

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

বিভাগ ভিডিও রিপোর্ট

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

সর্বশেষ খবর

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image

Gaibandha.news Ad. image

Gaibandha.news Ad. image

Gaibandha.news Ad. image


Gaibandha.news Ad. image

গল্প-প্রবন্ধ-নিবন্ধ

মতামত-বিশ্লেষণ

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি

কৃষি-বিজ্ঞান

স্বাস্থ্য-চিকিৎসা

সাজসজ্জা

রান্নাবান্না

ভ্রমণ-বিনোদন

চারু-কারুকলা

শিশুকিশোর

ইভেন্ট ফটো গ্যালারী

Gaibandha.news Ad. image

ইভেন্ট ভিডিও গ্যালারী

Gaibandha.news Ad. image

আর্কাইভ

SunMonTueWedThuFriSat
1

2

3

4

5

6

7

8

9

10

11

12

13

14

15

16

17

18

19

20

21

22

23

24

25

26

27

28

29

30

31

Gaibandha.news Ad. image

ইভেন্ট বোর্ড

খোঁজখবর - চাকুরি বিঞ্জপ্তি

Gaibandha.news Ad. image

খোঁজখবর - টেন্ডার বিঞ্জপ্তি

Gaibandha.news Ad. image

খোঁজখবর - বেচাকেনা

জরীপ/ভোটাভুটি (হাঁ/না)

Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Gaibandha.news Ad. image
Activities

© 2019 Gaibandha.News. All rights reserved. Inspired by w3schools.com

Crafted with by arccSoftTech & Powered with CSR by arccY2K.com a Subsidiary of BangladeshICT.com